Previous
Moringa powder price in Bangladesh | সজনে পাতার গুড়া খাওয়ার নিয়ম, সজনে পাতার গুড়া, Moringa Powder Side Fffects

Moringa Powder: সজনে পাতার গুড়া

৳ 750.00
Next

চিয়া সীড | Chia seed

৳ 650.00
চিয়া সীড | Chia seed

অশ্বগন্ধা মূলের গুঁড়া

৳ 150.00

অশ্বগন্ধা মূলের গুঁড়া

  • শতভাগ প্রাকৃতিক
  • নাটোরের ঔষধি গ্রাম থেকে সংগৃহীত
  • ওজনঃ ১০০ গ্রাম

Description

অশ্বগন্ধা কি ?

অশ্বগন্ধার বিজ্ঞানসম্মত নাম হল Withania Somnifera ও এটি পাওয়া যায় ভারত, পাকিস্তান, স্পেন, আফ্রিকা, মধ্য প্রাচ্য এবং দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলিতে। প্রাচীনকাল থেকেই এই গাছের পাতা, ফল, বীজ ও শিকড় আয়ুর্বেদিক ঔষুধ তৈরী করার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়

এখনও পর্যন্ত অশ্বগন্ধার নির্যাসে ৩৫ ধরণের ফাইটোকেমিক্যাল উপাদান আছে বলে জানা গেছে।

 

অশ্বগন্ধায় কি কি ভেষজ উপাদান আছে ?

অশ্বগন্ধায় উপস্থিত থাকে অ্যালকালয়েড, স্ট্রেরয়ডাল ল্যাক্টনস, ট্যানিনস, স্যাপোনিনস এই সব উপাদান যা ক্যান্সার, স্ট্রেস, বার্ধক্যজনিত প্রভাব, যৌনক্ষমতা সংক্রান্ত ও প্রদাহ জনিত সমস্যার বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে

এছাড়া উইথানন, উইথাফেরিন এ, ডি, ই , উইথাননোলাইড হল বায়োঅ্যাক্টিভ পর্দাথ যা অশ্বগন্ধায় থাকে।

 

অশ্বগন্ধার উপকারীতা

১. কোলেস্টেরল দূর করে

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে বলা হয়, অশ্বগন্ধা শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে পেশির শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

২. অনিদ্রা দূর করে

অশ্বগন্ধা ক্লান্তি দূর করে স্নায়ুকে আরাম প্রদান করতে পারে, তা তো আগেই জানলেন। তাই ঘুমও আসে খুব তাড়াতাড়ি। বিভিন্ন গবেষণার থেকে জানা যায় যে, অশ্বগন্ধা ব্যবহার করলে মনোযোগ বৃদ্ধি পায়।

৩. স্ট্রেস কমায়

অশ্বগন্ধায় উপস্থিত অ্যানজাইলটিক উপাদান থাকে বলে এটি মানসিক চাপকে কমিয়ে ফেলতে উপযোগী অর্থাৎ এই স্নায়ুতন্ত্রের ওপর কাজ করতে সক্ষম। আপনি যদি খুব ভয় পেয়ে যান কোনো কারণে তাহলে প্যানিক অ্যাট্যাক হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়। তাই স্নায়ুর ওপর চাপ পড়ে, এই সমস্যা এড়াতে অশ্বগন্ধা সাহায্য করে।

৪. যৌনক্ষমতা বাড়ায়

প্রাচীনকাল থেকেই ছেলেদের যৌনসমস্যা দূর করতে অশ্বগন্ধা ব্যবহার করা হয়। এটি প্রমাণিত যে অশ্বগন্ধা শরীরে টেস্টোস্টেরন ও প্রোজেস্টেরনের পরিমান বাড়াতে পারে। ফলে যৌন মিলনের ইচ্ছে বাড়ে। কিছু গবেষণা থেকে জানা যায় এটি কামশক্তি, বীর্যের পরিমান ও মান বৃদ্ধি করতে সক্ষম।

৫. ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে অশ্বগন্ধা ক্যান্সারের প্রতিরোধক হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এর পাতা ও মূলের নির্যাসে উপস্থিত ফাইটোকেমিক্যালস টিউমার কোষকে ধ্বংস করতে ও সেই কোষে রক্ত সরবারহ বন্ধ করে দেয়।

কেমোথেরাপির মধ্যে দিয়ে যাদের যেতে হয়, তাদের জীবনের মানের উন্নতি ঘটাতে পারে অশ্বগন্ধা।

৬. ডায়াবেটিসের সমস্যা কমাতে

অশ্বগন্ধার মূল ও পাতার নির্যাস অ্যান্টি-ডায়াবেটিক উপাদান থাকে। এই অংশের কোষে যে ফ্ল্যাভোনয়েডস থাকে তা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত মানুষদের শরীরে ইনসুলিনের পরিমাণ বাড়াতে সাহায্য করে। এছাড়া ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের শরীরে লিপিডের পরিমান ঠিক রাখতে সাহায্য করে বলে জানা যায়।

৭. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়

অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান থাকার জন্য অশ্বগন্ধা শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

৮. থাইরয়েডের সমস্যা কমাতে

শরীরে থাইরক্সিন হরমোনের পরিমান বাড়ায় এই অশ্বগন্ধা। হাইপোথাইরয়েডের অর্থাৎ যাদের শরীরে থাইরয়েড হরমোনের পরিমান কম থাকে তাদের এই সমস্যা দূর করতে এটি ব্যবহৃত হয়।

৯. চোখের সমস্যা কমাতে

চোখের স্বাস্থ্য ভালো করতে অশ্বগন্ধা ব্যবহার করা হয় বলে জানা যায়।

১০. আর্থ্রাইটিস সারাতে

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে আর্থ্রাইটিস সারাতে অশ্বগন্ধা ব্যবহৃত হয়। এর ব্যথার তীব্রতা কমাতে অশ্বগন্ধার গুঁড়ো খুবই উপযোগী।

১১. স্মৃতিশক্তি উন্নত করে

সাধারণ মানুষের স্মৃতিশক্তি ও যাদের অ্যালজাইমারস রোগ আছে, তাদের ক্ষেত্রেও অবস্থার উন্নতি করে এই অশ্বগন্ধা।

১২. পেশী মজবুত করে

অশ্বগন্ধা পেশী মজবুত করতে উপযোগী যে তা প্রমাণিত। এছাড়া ব্যায়াম করলে পেশিতে চাপের সৃষ্টি হয় তা কমাতেও এটি ব্যবহৃত হয়। পেশিতে কোনো আঘাত পেলে এটি তা সারাতে কাজে লাগে।

১৩. ইনফেকশন থেকে বাঁচায়

অশ্বগন্ধায় অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান থাকার জন্য এটি নানা ধরণের ইনফেকশন থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে।

১৪. হার্টের ক্ষেত্রে

শরীরে রক্ত চলাচল সঠিক রেখে হার্টকে স্বাস্থ্যকর করে তোলে অশ্বগন্ধা।

১৫. শরীরের ওজন বৃদ্ধি করতে

অনেকে মনে করেন শরীরের ওজন বৃদ্ধি করতে অশ্বগন্ধার মূলের গুঁড়ো সাহায্য করে, কিন্তু এটি এখনও প্রমানিত নয়।

১৬. অবসাদ কমাতে

জানা যায় অশ্বগন্ধার নির্যাস অবসাদ ও মনের উদ্বেগ কমাতে উপযোগী কারণ এটি হল অ্যাড্যাপটোজেন।

১৭. মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখতে

যেহেতু অশ্বগন্ধা একটি অ্যাড্যাপটোজেন, তাই এটি মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে সক্ষম।

১৮. ত্বকের ইনফেকশন ঠিক করতে

অশ্বগন্ধার পাতায় অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান থাকার জন্য ত্বকের ইনফেকশনকে কমাতে সাহায্য করে।

১৯. বার্ধ্যকের ছাপ দূর করতে

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে মনে করা হয় বার্ধ্যকের ছাপ পড়তে দেয় না অশ্বগন্ধা গাছের নির্যাস।

২০. ক্ষত সারাতে

অশ্বগন্ধায় অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান থাকার জন্য শরীরের ক্ষত সারাতে পারে বলা হয়।

২১. কর্টিসল লেভেল কমাতে

অ্যাডরিনালিন গ্ল্যান্ডের কোনো সমস্যা থাকলে রক্তে কর্টিসলের পরিমান কম বেশি হয়, এই সমস্যা থেকে মুক্ত হতে অশ্বগন্ধা সাহায্য করে।

২২. চুলকে মজবুত করতে

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে চুলকে ঝলমলে ও স্বাস্থ্যকর করে তুলতে অশ্বগন্ধা খুবই উপযোগী বলে মানা হয়।

২৩. খুশকি কমাতে

অশ্বগন্ধার গুঁড়ো দিয়ে তৈরী তেল খুশকি কমাতে অনবদ্য। তাই বেশিরভাগ খুশকি কমানোর শ্যাম্পুতে অশ্বগন্ধা থাকে।

২৪. অকালে চুল পাকা আটকাতে

অকালে চুল পাকা আটকাতে আয়ুর্বেদ শাস্ত্র অনুযায়ী অশ্বগন্ধা গাছের নির্যাস খুবই উপকারী।

 

অশ্বগন্ধার পুষ্টিগত মান

প্রতি ১০০গ্রাম অশ্বগন্ধার গুঁড়ো বা পাউডারের পুষ্টিগত মান নিচে উল্লেখ করা হল।

  • এনার্জি ২০০ কিলো ক্যালোরি
  • কার্বোহাইড্রেট ৭৫ গ্রাম
  • ফাইবার ৭৫ গ্রাম

 

 অশ্বগন্ধা গুড়া খাওয়ার নিয়ম –

·        এক কাপ চা, দুধ বা মধুর সঙ্গে ১-২ চামচ অশ্বগন্ধা পাউডার মিশ্রিত করে নিয়মিত খেলে ভালো উপকার পাওয়া যায়।

 

অশ্বগন্ধার ভেষজ গুনাগুণ সম্পর্কে তো জানলেন, তাহলে বুঝতেই পারছেন এটি শরীরের পক্ষে কতটা স্বাস্থ্যকর। তাহলে এখন থেকে এটি নিশ্চয়ই ব্যবহার করা শুরু করবেন। নিজের যত্ন করুন ও সুস্থ থাকুন।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “অশ্বগন্ধা মূলের গুঁড়া”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shopping cart

0
image/svg+xml

No products in the cart.

Continue Shopping